জন্ম নিবন্ধন যাচাই, সংশোধন, ও অনলাইনে আবেদন – BDRIS.GOV.BD

জন্ম নিবন্ধন যাচাই

জন্ম নিবন্ধন যাচাই, সংশোধন, ও অনলাইনে আবেদন – BDRIS.GOV.BD

অনলাইনে ঘরে বসে কিভাবে খুব সহজেই জন্ম নিবন্ধন যাচাই, সংশোধন, ও অনলাইনে আবেদন করে নিতে পারবেন কিংবা অনলাইন জন্ম নিবন্ধন চেক করে নিতে পারবেন? সেটি দেখে নিতে এই আর্টিকেলটি কন্টিনিউ করতে থাকুন।

আমাদের সাথে যোগাযোগের ঠিকানা

জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইন হয়েছে কিনা সেটি জানার জন্য জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে হয়। বর্তমানে হাতের লিখা জন্ম নিবন্ধন কোন ক্ষেত্রে গ্রহণযোগ্য নয়। সরকারি কিংবা বেসরকারি যে সব কাজে জন্ম নিবন্ধন প্রয়োজন সেখানে অনলাইন জন্ম সনদ চেয়ে থেকে।

আর্টিকেলে যা থাকছে

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই

শুধু জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ প্রয়োজন জন্ম নিবন্ধন চেক করতে। নিচের ফরমের তথ্য পূরণ করে আপনি সহজে যেকোন জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে ফেলতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন থেকে থাকলে তা অনলাইন আছে কিনা তা যাচাই করুন। জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সনদ যাচাই করার নিয়ম এবং জন্ম নিবন্ধন ডাউনলোড সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন।

জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন নথিভুক্ত করার জন্য বাংলাদেশ জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন bdris.gov.bd ওয়েবসাইট রয়েছে। এই সরকারি সাইটে শিশু জন্ম গ্রহণ করলে তার জন্ম নিবন্ধন এবং কেউ মৃত্যু বরণ করলে মৃত্যু নিবন্ধন অনলাইন করা হয়। আর এই সব কিছু bdris website এর ডাটাবেসে সংরক্ষিত থাকে।

মোট সময় 30 minutes

জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন ওয়েবসাইটে প্রবেশ

জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন ওয়েবসাইটে প্রবেশ

বাংলাদেশ জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন সরকারি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন- https://everify.bdris.gov.bd লিঙ্ক এ সরাসরি ক্লিক করে ভিজিট করতে পারেন অথবা গুগলে সার্চ করেও প্রবেশ করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন ও জন্ম তারিখ যাচাই করুন

জন্ম নিবন্ধন ও জন্ম তারিখ যাচাই করুন

জন্ম নিবন্ধন যাচাই সাইটে প্রবেশ করার পর একটি ফরম দেখতে পাবেন, যেখানে জন্ম নিবন্ধন নাম্বার, জন্ম তারিখ ও ক্যাপচা পূরণের খালি ঘর থাকবে। Birth Registration Number ঘরে ১৭ সংখ্যার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ইংরেজিতে লিখতে হবে। এই ফরমটি কপি পেস্ট করে পূরণ করা যাবে না। যা লিখার টাইপ করে লিখতে হবে। এরপর Date of Birth ইনপুট ফিল্ডে আপনার জন্ম তারিখ লিখুন। জন্ম তারিখ লিখার ফরমেট হবে (YYYY-MM-dd). জন্ম তারিখ ঘরে ক্লিক করলে ক্যালেন্ডার হতে জন্ম তারিখ বাছাই করার অপশন পাবেন। আপনি চাইলে নিজে নিজে টাইপ করে জন্ম তারিখ লিখতে পারবেন।

ক্যাপচা পূরণ

ক্যাপচা পূরণ

সাইটের নিরাপত্তা ও স্প্যাম প্রোটেকশনের জন্য নিরাপত্তা ক্যাপচা সিস্টেম রাখা হয়েছে। ক্যাপচাটি সাধারণত যোগ ইথবা বিয়োগ অঙ্ক দেয়া থাকে। সঠিক উত্তরটি লিখে দিলেই ক্যাপচার কাজ শেষ। The answer is ঘরে আপনি ক্যাপচা প্রশ্নের উত্তরটি লিখে দিবেন।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই অনলাইন

জন্ম নিবন্ধন যাচাই অনলাইন

জন্ম নিবন্ধন নাম্বার এবং জন্ম তারিখ লিখে Search বাটনে চাপলে যার জন্ম নিবন্ধন তার কিছু তথ্য দেখতে পাবেন। অনলাইনে নিবন্ধিত ব্যক্তির নাম, ঠিকানা, পিতার নাম, মাতার নাম সহ জন্ম স্থান যাচাই করতে সক্ষম হবেন। উপরের ছবিটি লক্ষ করলে বুঝতে পারবেন একটি জন্ম নিবন্ধন অনলাইন যাচাই করলে সেটি দেখতে কেমন হবে।
আর যদি নিবন্ধন অনলাইন করা না হয় তা হলে সার্চ করার পর No Record Found লেখা দেখাবে। তা হলে বুঝে নিতে হবে এই জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করা হয়নি।

জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড

জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড

জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড বা অনলাইন কপি ডাউনলোড করার জন্য একই নিয়মে everify.bdris.gov.bd ভিজিট করে ১৭ সংখ্যার জন্ম নিবন্ধন নম্বর এবং জন্ম তারিখ (yyy-dd-mm) লিখে সাবমিট করলে জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি দেখতে পাবেন। অনলাইন কপি আপনার সামনে চলে আসলে এটি খুব সহচে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। আপনি চাইলে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি pdf আকারে মোবাইল বা কম্পিউটারে Save করে রাখতে পারবেন। জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি প্রিন্ট করতে অথবা পিডিএফ ডাউনলোড করতে কীবোর্ড এর Ctrl এবং P বাটন একসাথে চাপুন। (Ctrl + P) চাপলে আপনার সামনে এই অনলাইন সনদ প্রিন্ট করার জন্য ডায়লগ দেখাবে। আপনার কম্পিউটারে প্রিন্টার সংযোগ থাকলে প্রিন্ট করে ফেলতে পারবেন। আর যদি পরবর্তী সময়ে প্রিন্ট করতে চান তা হলে Save as PDF করে মোবাইলে বা কম্পিউটারে সংরক্ষন করে নিতে পারেন। জন্ম নিবন্ধন সনদের একটি অনলাইন কপি আপনার ডাউনলোড হয়ে যাবে।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড

যদিও জন্ম নিবন্ধন অনলাইন যাচাই করার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে যাচাই কপি ডাউনলোডকরার কোনো অপশন দেয়নি। তবুও আপনি চাইলে নিচের পদ্ধতিটির মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

ধাপ ১ থেকে ৬ অনুসরণ করে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন যাচাই তথ্য খুজে পাওয়ার পর। ওই পেজটি আপনার স্ক্রিনে থাকা অবস্থায় আপনার কম্পিউটার থেকে CTRL+P একসাথে চাপলে আপনি “Print to PDF” নামক একটি অপশন পাবেন সেটিতে ক্লিক করে সহজেই জন্ম তথ্য প্রিন্ট করতে পারবেন।

তবে যদি আপনার প্রিন্টার না থাকে তাহলে আপনি চাইলে ডাউনলোড করে সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন।

তার জন্য CTRL+P চাপার পর যখন “Print to PDF” অপশন আসবে তখন সেটিতে ক্লিক করে PDF সিলেক্ট করে আপনার কম্পিউটারে জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন কিভাবে যাচাই করবেন

পূর্বে যে সমস্ত জন্মনিবন্ধন কার্ড রয়েছে প্রায় প্রত্যেকটি জন্ম নিবন্ধন কার্ডের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ১৭ সংখ্যার বদৌলতে ১৬ সংখ্যা দিয়ে পরিপূর্ণ করা।

কিন্তু আপনি যদি লক্ষ্য করেন তাহলে দেখতে পারবেন, অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন চেক করে নেয়ার জন্য ওয়েবসাইট রয়েছে, সেখানে আপনি শুধু মাত্র ১৭ ডিজিটের নাম্বারের জন্য জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার যদি ১৬ ডিজিটে হয়ে থাকে তাহলে সেটি কিভাবে চেক করবেন? এটা চেক করার জন্য আপনাকে একটি টেকনিক খাটাতে হবে। আর এই টেকনিক নিচে ভালোভাবে বর্ণনা করা হলো।

আপনার জন্ম নিবন্ধন যদি ১৬ ডিজিটে হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে আপনার জন্ম নিবন্ধন হাতে নিতে হবে। এবার আপনার জন্ম নিবন্ধনের সর্বশেষ ৫ সংখ্যার পূর্বে, অতিরিক্ত একটি ০ বসিয়ে দিতে হবে।

সর্বশেষ ৫টি সংখ্যা বলতে আমি কি বুঝিয়েছি সেটা ভালভাবে বুঝার জন্য আপনি চাইলে নিম্নলিখিত ছবির দিকে লক্ষ্য রাখতে পারেন।

উপরে যেভাবে সর্বশেষ ৫টি সংখ্যার পূর্বে একটি শুন্য বসিয়ে দিয়ে জন্ম নিবন্ধনের ১৭ ডিজিট সম্পন্ন করা হয়েছে, ঠিক সেভাবে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধনের ১৭ ডিজিট সম্পন্ন করে নিন।

যখন আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন ১৬ ডিজিট থেকে ১৭ ডিজিট করে নিতে সক্ষম হবেন, তখন আপনি চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে উপরে উল্লেখিত নিয়মে খুব সহজে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই নিয়ে কিছু প্রশ্ন এবং উত্তর

জন্ম নিবন্ধন যাচাই নিয়ম কি?

মূলত আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার জন্য everify.bdris.gov.bd এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার এবং জন্ম তারিখ ইত্যাদি দিয়ে সর্বশেষ একটা ক্যাপচা পূরণ করতে হবে এবং search বাটনে ক্লিক করে জন্ম নিবন্ধন চেক করে নিতে পারবেন।

১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন কিভাবে যাচাই করব?

১৬ ডিজিটের জন্য নিবন্ধন যাচাই করার জন্য নিবন্ধন নম্বরের শেষর ৫ ডিজিটের পূর্বে একটি (0) যুক্ত করে ১৭ ডিজিট করতে হবে।

নাম দিয়ে কি জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা যায়?

দুর্ভাগ্যবশত আপনি শুধুমাত্র কারো নাম দিয়ে তার জন্ম নিবন্ধন চেক করতে পারবেন না। চেক করার জন্য অবশ্যই ১৭ ডিজিটের জন্য নিবন্ধন নাম্বার এবং সঠিক জন্ম তারিখের প্রয়োজন। যেটা কিনা আজকের এই নিবন্ধের মধ্যে আমি স্টেপ বাই স্টেপ শেয়ার করেছি।

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন পাওয়া না গেলে কি করবেন?

এর একটি কারণ হতে পারে আপনার দেয়া তত্ত্বের মধ্যে ঘাটতি এবং অন্যটি হলো আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইন না হওয়া। এবার আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য যদি ঠিক থাকে তাকে এবং তার পরেও আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন রিলেটেড তথ্য খুঁজে না পান, তাহলে আপনাকে ইউনিয়ন পরিষদের যোগাযোগ করতে হবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন হয়েছে কিনা সেটি জানার জন্য।

অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই লিঙ্ক কি?

অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার অফিশিয়াল লিঙ্ক হলো everify bdris gov bd । এটি জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন সরকারি ওয়েব সাইটের লিঙ্ক।

অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই কেন করবেন?

#১) আপনার জন্ম সনদটি ডিজিটাল বা অনলাইন কিনা তা বুঝতে জন্ম তথ্য অনলাইন যাচাই করার বিকল্প নেই। বর্তমানে প্রতিটি ক্ষেত্রে ডিজিটাল জন্ম সনদ লাগে।

#২) ইন্টারনেট এর এই যুগে বিভিন্ন টুলস এর মাধ্যমে যে কেউ চাইলে নকল জন্ম নিবন্ধন সনদ তৈরি করতে পারে। তাই আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদটি আসল কিনা তা জানতে Jonmo Nibondhon Jachai করা প্রয়োজন।

#৩) বর্তমানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি হওয়া থেকে শুরু করে বিভিন্ন কাজে জন্ম নিবন্ধন সনদ লাগে। এক্ষেত্রে প্রথমে নিজের জন্ম সনদটি চেক করা বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

#৪) নতুন ভোটার আইডি কার্ড তৈরিতে জন্ম সনদ থাকা অবশ্যক। কেননা আপনার জন্ম সনদ এর তথ্যের ভিত্তিতে আপনাকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড প্রদান করা হবে। তাই অবশ্যই একবার হলেও আগে আপনার জন্ম সনদ তথ্য যাচাই করে নিবেন।

ডাউনলোডজন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড
সংশোধনজন্ম নিবন্ধন সংশোধন
আবেদনজন্ম নিবন্ধন আবেদন
হোমপেইজBDRIS
Back to top button